ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবার যুগান্তকারী পরিবর্তন!

জেলা সংবাদ নাগরিক সংবাদ ফরিদপুর সংবাদ ভাঙ্গা

সোহাগ মাতুব্বর স্টাফ রিপোর্টার: ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার একমাত্র সরকারি হাসপাতাল হলো “ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে”। এখন ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে এসেছে যুগান্তকারী পরিবর্তন। নানা প্রতিবন্ধকতা আর দালাল চক্রের দৌড়াত্বের কারনে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আবারো চালু হয়েছে বিনা মূল্যে “সিজার ও অপারেশন”

উল্লেখ্য দীর্ঘ এগারো (১১) বছর বন্ধ থাকার ভাঙ্গা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মহাসিন ফকিরের আপ্রাণ চেষ্টায় অবশেষে চালু করা হয়েছে বিনা মূল্যে সিজার ও অপারেশন।

পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মহাসিন ফকির ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদান করার পর থেকেই পাল্টে যেতে থাকে হাসপাতালের সেবা। তিনি যোগদান করার পরেই ভাঙ্গা উপজেলা বাসীকে প্রতিশ্রুতি দেন সর্বক্ষণ  বিশেষজ্ঞ চিকিৎসা সেবা, সমস্ত চিকিৎসকদের উপস্থিত নিশ্চিত করন  ও সম্পূর্ণ দালাল মুক্ত সার্টিফিকেট বানিজ্য বন্ধ, ২৪ ঘন্টা জরুরি সেবা প্রদান, মাতৃত্ব কালীন সেবা প্রদান, বিনা মূল্যে সিজার ও অপারেশন করা, মাতৃ স্বাস্থ্য ভাউচার স্কিম আওতায় গরিব অসহায় মায়েদের অর্থিক অনুদান প্রদান করা।

তিনি একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ সেবা মূলক  হাসপাতাল বিনির্মাণ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন ।

বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স শতভাগ দালাল মুক্ত, হচ্ছে না সার্টিফিকেট বানিজ্য। যে কোন সময় হাসপাতালে গেলে পাওয়া যায় জরুরি সেবা।

এই বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ এম এম মঈনুদ্দিন সেতু বলেন,  আমাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আগে তেমন কোন যন্ত্রপাতি ছিল না, সিজার ও অপারেশন করার ব্যবস্থা বন্ধ ছিল। ১১ বছর পর আবার চালু হয়েছে বিনা মূল্যে সিজার ও অপারেশন। হাসপাতালে একটি ভবন নির্মাণাধীন থাকায় চিকিৎসা সেবা কিছুটা সমস্যা ও ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে তবে ভবন টি নির্মাণ হয়ে গেলে আমাদের আর কোন সমস্যা থাকবে না।

তিনি আরো বলেন, আজ থেকে আবারো বিনা মূল্যে সিজার ও অপারেশন  শুরু হওয়ায় আমরা ভাঙ্গা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর সকল ডাক্তার নার্স কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পক্ষে ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মহাসিন ফকির  কে ধন্যবাদ জানাই এবং সবাই কে অভিনন্দন জানাই !

আজ ১৭ অক্টোবর (রবিবার) বিনা মূল্যে  সিজার ও অপারেশন করা হয়। রোগীর নাম রেহানা আক্তার (২২)। এই সিজার ও অপারেশনের নেতৃত্ব দেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডক্টর মোঃ মোহসিন উদ্দিন। এই সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, সহকারী সার্জন ছিলেন ডা :মোঃ আসাদুজ্জামান, এনেস্থেটিস্ট ডা: গোপাল দেব, এ ছাড়া এ সময় উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা :এম এম মঈনুদ্দিন সেতু সহ অন্যান্য চিকিৎসক বৃন্দ।

এই বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মহাসিন ফকির  বলেন,  নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা থাকা স্বত্বেও আমরা আজ থেকে  সিজার ও অপারেশন ব্যবস্থা করা হয়েছে। এই সকল কাজের দিক নির্দেশনা ও সার্বিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী (নিক্সন) কে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স  দালাল মুক্ত করার লক্ষ্যে নানা ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। হাসপাতালে একটি  বিল্ডিং নির্মাণাধীন থাকায় আমাদের সেবা প্রদান কার্যক্রমে কিছুট বেগ পেতে  হচ্ছে। কিন্তু এরপরও আমরা যথা সম্ভব সেবা প্রদান করে যাচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *