ভাঙ্গায় প্রবাসীর বিডিং নির্মানে প্রভাবশালীদের বাধাঁ দেওয়ার অভিযোগ

ফরিদপুর সংবাদ ভাঙ্গা

আব্দুল মান্নান, ভাঙ্গা(ফরিদপুর)প্রতিনিধি ঃ- ভাঙ্গা উপজেলার চান্দ্রা ইউনিয়নের লোহারদিয়া গ্রামে চাঁদার দাবিতে প্রবাসীর বিডিং বা ঘর নির্মানে প্রভাবশালীদের বাধাঁ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। প্রভাবশালীরা একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে সুইজারল্যান্ড প্রবাসীদের হয়রানি করিতেছে। এঘটনায় ৩ সুইজারল্যান্ড প্রবাসী কাজী দেলোয়ার হোসেন, কাজী বেলায়েত হোসেন ও কাজী এনায়েত হোসেন চরম বিপাকে পড়েছেন।

এ ঘটনায় প্রবাসীর ভাই কাজী বিল্লাল হোসেন জানান, আমার ৩ ভাই কাজী দেলোয়ার হোসেন, কাজী বেলায়েত হোসেন ও কাজী এনায়েত হোসেন সুইজারল্যান্ডে থাকে এবং আমি ঢাকায় ব্যবসা করি। আমরা ৪ ভাই মিলে আমাদের পৈতিক ও ক্রয়কৃত জায়গার উপর ৩/৪ মাস পুর্বে একটি বিডিং নির্মানের কাজ শুরু করি। কিন্ত আমার বাড়ি পাশে প্রতিবেশী প্রভাবশালী অকিল হাওলাদার সহ তার পুত্র শাহীন, শামীম, তুহিন ও ভাতিজা আবুল হোসেন হাওলাদাররা বিভিন্ন চাঁদা দাবি করে বিডিং নির্মানে বাঁধা দেয়। বিডিং উত্তোলন করতে গেলে আমার মা ও খালাকে মারধর ও প্রান নাশের হুমকি দেয়। এঘটনায় আমি কাজী বিল্লাল হোসেন বাদি হয়ে ভাঙ্গা থানায় ১৬ জনকে আসামী করে একটি মামলা করি। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধিন রয়েছে। আমরা আবারও কাজ করতে গেলে বাউন্ডারী ভিতর প্রবেশ করে সোমবার সকালে একটি বিডিংয়ের খুটি বা ব্যাজ উপড়ে ফেলে। তারা আমাদের নামে তারা পর পর ২টি মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে। কিন্ত আদালত মামলা ২টির রায় আমাদের পক্ষে দেয়।

এ ব্যাপারে কাজী বিল্লাল হোসেনের মা জহুরা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, আমার ৩ ছেলে বিদেশে ও ১ জন ঢাকায় থাকে। আমার ছেলেরা পুরাতন টিনের ঘর ভেঙ্গে বিডিং করতে গেলে বাড়ির পাশে প্রভাবশালী অকিল হাওলাদার ও তার পুত্র শাহীন, শামীম, তুহিন ভাতিজা আবুল হোসেন হাওলাদাররা আমাদের নিকট বিভিন্ন অজুহাতে টাকা চায়। আমরা নরম মানুষ এই কারনে ২/৩ বার তাদেরকে টাকা দিয়েছি। তারপরও তারা বিডিং এর কাজ বন্ধ করে একটি ঘুটি উঠিয়ে ফেলে। এদের হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

তবে এব্যাপারে আবুল ও শামীম হাওলাদার জানান, আমরা কোন মারধর বা চাঁদা চাই নাই এবং বিডিং এর ব্যাচ উঠাই নাই। তবে আমরা রাস্তার জন্য বিডিং নির্মানে বাঁধা দিয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *